চকরিয়া হাসপাতাল সড়কে দালালদের দৌরত্ম, সংবাদ প্রকাশের পর, চকরিয়া আদালতের স্বপ্রণোদিত মামলা, ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

pic-chakaria-10-08-2020,md ullah

আবদুল মজিদ
বিভিন্ন পত্রিকা, অনলাইন ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘চকরিয়া সরকারি হাসপাতাল সড়কে দালালদের হাতে নাজেহাল হচ্ছেন রোগিরা’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর চকরিয়ার সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিজ্ঞ বিচারক রাজীব কুমার দেব তা আমলে নিয়ে স্বপ্রণোদিত হয়ে জনস্বার্থে মামলা গ্রহণ করেছেন। মামলায় আগামী ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য থানার অফিসার ইনচার্জ এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।
চকরিয়ার সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের সিএসআই (উপ-পরিদশর্ক) মো: কাইছার জানান, চকরিয়া সরকারি হাসপাতাল সড়কে দালালদের হাতে নাজেহাল হচ্ছেন রোগিরা” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি চকরিয়ার বিজ্ঞ সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট রাজিব কুমার দেব এর দৃষ্টি গোচর হয়। উক্ত সংবাদে স্বপ্রণোদিত হয়ে জনস্বার্থে চকরিয়া আদালতে মামলা (নং ১৪/২০২০) গ্রহণ করেন।
চকরিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আবদুল মজিদ জানান, চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে “সরকারি হাসপাতাল সড়কে দালালের হাতে রোগি নাজেহাল” শিরোনামে সংবাদটি প্রকাশিত হয়। উক্ত সংবাদটি আমার নিজের ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করি এবং দ্রুত সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। এরপর জনবহুল এ বিষয়টি চকরিয়ার বিজ্ঞ সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট রাজিব কুমার দেব এর সরাসরি নজরে আসলে বিজ্ঞ আদালত জনস্বার্থে স্বপ্রণোদিত হয়ে মামলা গ্রহণ করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা চকরিয়াবাসী আশা প্রকাশ করছি, বিজ্ঞ আদালতের এই উদ্যোগের ফলে সরকারি হাসপাতাল সড়কে এখন থেকে সাধারণ রোগিরা সহজভাবে চিকিৎসা নিতে পারবে এবং দালালদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে সচেষ্ট হবেন। আদালতের এ সিদ্ধান্তের ফলে দালালরা অনেকটা গাঢাকা দিয়েছে।
চকরিয়া সিনিয়র ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের সরকারী পিপি এডভোকেট এএইচ শহিদুল্লাহ চৌধুরী জানান, সরকারি হাসপাতাল সড়কে দালালদের হাতে নাজেহাল হচ্ছে রোগিরা এমন সংবাদটি বিজ্ঞ সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের নজরে আসে। আদালত উক্ত সংবাদটি আমলে নিয়ে চকরিয়া থানার ওসিকে আগামী ৭ (সাত) কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। পাশাপাশি চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড: মোহম্মদুল হক’কে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেওয়ার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।
এদিকে, সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত চকরিয়া, কক্সবাজার এর এ সিদ্ধান্তে সচেতন মহল আদালতের প্রতি সন্তোষ্টি সহকারে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা পাওয়ার পর থেকে তদন্ত কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নির্দেশনা অনুযায়ী উক্ত ৭ কার্য দিবসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে এবং সরকারি হাসপাতালের যেসব দালাল রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আদালতের নির্দেশনা সাপেক্ষে আইনগত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মোহাম্মদুল হক জানান, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী দালালদের তালিকা তৈরীসহ ব্যবস্থা গ্রহণে থানা প্রশাসনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা দেয়া হবে। ##

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।