প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য

Protibad_1

বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে গত ২০অক্টোবর ‘চকরিয়ায় ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটির প্রতিবাদ জানিয়েছে ডুলাহাজারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাজ্জাদ হোসাইন। প্রকাশিত সংবাদটিকে সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছেন তিনি।

প্রতিবাদ লিপিতে তিন একর ধান ও মাছ চাষ প্রকল্পের জমি দখল, লুটপাট ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ ইত্যাদির বিষয়ে তার বিরুদ্ধে যেসব তথ্য উঠে এসেছে সেগুলো অস্বাকীর করে সাজ্জাদ হোসাইন দাবি করেছেন, আমি সরকারকে রাজস্ব দিয়ে বাংলা ১৪২৭-১৪২৯ সন পর্যন্ত রিংভং বন্ধ জলমহালটি ইজারা নিয়েছি। যা জুলাই মাসে দখল বুঝিয়ে নিলেও মানবিক বিবেচনায় ৩ মাসেরও বেশি সময় দেওয়া হয়েছে।

এতেই একটি স্বার্থান্বেষী মহল তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ভাবে ইন্ধন জোগাচ্ছে। ওই প্রতিবাদ লিপিতে মালামাল লুট, কেয়ারটেকারকে মারধর ও মাছ লুটের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি দাবি করেছেন, ওনার কৃষি জমির রোপিত ধানের কোন ক্ষতি হয়নি। মালামাল ও সম্পদ যেভাবে ছিল সেভাবে আমার কেয়ারটেকাররা আমানত হিসেবে রেখেছে। ওনাকে কয়েকবার মালামালগুলো নিয়ে যেতে বললেও নিয়ে যাননি। বর্গা চাষী ফরিদের মালামাল ও কি-কি সম্পদ ছিল তা আমার সঙ্গে তার ফোন আলাপের কলের রেকর্ড আছে। মুলত তিনি প্রতিহিংসাবশত এমন তথ্য দিয়েছে।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ আরও দাবি করেন, শফিউল আলম দীর্ঘ ৩০বছরের অধিক সময় অবৈধভাবে জলমহালটি দখল করে রেখেছিল। আমি সরকারীভাবে জলমহালটি ইজারা পাওয়ার পর মুলত তারা এমন মিথ্যাচার শুরু করেছে। আমি সরকারী নীতিমালা মেনে রাজস্ব দিয়ে জলমহালটি ইজারাপ্রাপ্ত হই। যা সুস্পষ্টভাবে চকরিয়ার এসিল্যান্ড মহোদয় অবগত আছেন।
প্রতিবাদকারী- সাজ্জাদ হোসাইন,সভাপতি
ডুলাহাজারা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ,চকরিয়া, কক্সবাজার ।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।