চকরিয়ায় জমি বিরোধে দু’দফা হামলায় ৫জন আহত

received_1202257350175136
চকরিয়া অফিসঃ
চকরিয়ায় জমি বিরোধে দু’দফা হামলায় ৫জন আহত হয়েছে।আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। চকরিয়া পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের কাজীরপাড়া এবং সরকারি হাসপাতাল এলাকায় গত ২১অক্টোবর বিকাল ৪টা ও সন্ধ্যা ৭টার দিকে ঘটেছে এ ঘটনা।
এনিয়ে ১নং ওয়ার্ড কাজী এলাকার মৃত আবদুল গনির পুত্র মোঃ নুরুল আলম (৬৪)বাদী হয়ে থানায় একটি এজাহার দাখিল করেছেন। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে; আপন সহোদর মাহবুবুল আলম ও ফরিদুল আলম, ইদু মিয়ার পুত্র মোঃ ইউসুফ, মাহবুবুল আলমের পুত্র তৌহিদুল ইসলাম, মাহবুবুল আলমের স্ত্রী নুর জাহান, ফরিদুল আলমের স্ত্রী তাছনিন বেগম, মোঃ রিফাত, মোঃ ইসতিসহ অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে।
অভিযোগে জানাগেছে, আপন ভাই-বোনদের পৈত্রিক জমি থেকে বঞ্চিত করার অপকৌশল হিসেবে একতরফা ভাবে জমাভাগ খতিয়ান সৃজন করে মাহবুবুল আলম ও ফরিদুল আলম গং। উক্ত খতিয়ানের বিরুদ্ধে চকরিয়া সহকারি কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তার কার্যালয়ে রিভিও মামলা (আপত্তি) করেন জমির অংশিদার নুরুল আলমসহ অপরাপররা। এরপ্রেক্ষিতে ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা ২১অক্টোবর বিকাল ৪টার দিকে অভিযুক্তরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে বাধা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে হামলায় বাদীর বোন রুমি বেগম (৪০)কে গুরুতর জখম করে। ওই সময় তার গলায় থাকা ৭০ হাজার টাকা মূল্যেরর স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নেয়। পরে পরিবারের অপরাপর সদস্যরা ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরবর্তিতে ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে অভিযুক্তরা হাসপাতালে গিয়ে পূণরায় হামলা চালায়। হামলায় আহত হয়েছে; বাদী নুরুল আলম, নাজেম উদ্দিনের স্ত্রী রুমি আক্তার (৪০), মেয়ে রাফিয়া নাজিম (১৮), মনজুর আলমের পুত্র শেখ আহমদ (১৮) ও বদিউল আলমের পুত্র আবু সৌরভ (২৭)। তাদেরকেও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার সময় বাদীর পকেট থেকে ব্যবসায়ীক ৭৫ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। পরে বাংলাদেশ পুলিশের ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করলে থানার উপপরিদর্শক কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাকের মোঃ যুবায়ের বলেন, ঘটনার বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে মামলা গ্রহণসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।