চকরিয়ায় পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বিক্রি করছেন ম্যানেজিং কমিটির সদস্য

FB_IMG_1604683403708

চকরিয়া প্রতিনিধিঃ
চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির (এডহক কমিটি) সদস্য নাজেম উদ্দিন বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে টাকার বিনিময়ে প্রশ্নপত্র বিক্রি করছেন বলে অভিযোগ করেছেন উক্ত বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীদের অভিভাবকগণ।
শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনায় মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমূহে বর্তমানে চলমান এসাইন্টমেন্ট ভিত্তিক মুল্যায়ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের কপি বিদ্যালয় কর্তৃক বিতরণের দুইদিন পূর্বেই, গত ৩ ও ৪ নভেম্বর’২০২০ইং, অনৈতিক ভাবে টাকার বিনিময়ে ছাত্র/ছাত্রীদের কাছে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।
কয়েকজন অভিভাবক বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নাজেম উদ্দিন ইতোমধ্যে অনেক ছাত্রীদেরকে উপবৃত্তি পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে চার/পাঁচ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছেন।
বিদ্যালয়ের অভিভাবক নাজেম উদ্দিন বলেন, আমার মেয়ে উক্ত বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীতে পড়ে, ওদের প্রশ্ন পত্র বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নাজেম উদ্দিনের লাইব্রেরীতে পাওয়া যাচ্ছে, এমন খবর শুনে তার দোকানে গিয়ে দেখি শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী/অভিভাবকদের ভীড়। আমিও লাইনে দাঁড়িয়ে টাকা দিয়ে আমার মেয়ের জন্যও প্রশ্নপত্র কিনেছি। প্রশ্নপত্র বিক্রির সময় লাইব্রেরীর মালিক নাজেম উদ্দিন, বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কামাল হোসেনের নির্দেশেই বিক্রি করছেন বলে অভিভাবকদের জানান। হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য নাজেম উদ্দিন টাকার বিনিময়ে প্রশ্নপত্র বিক্রির কথা স্বীকার করে বলেন, আমি শুধু ফটোকপি করানোর টাকা নিয়েছি। এক কপি ফটোকপি করতে ২০ টাকা কেন? জানতে চাইলে, এর কোন সদোত্তর দিতে পারেননি। এ বিষয়ে হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মাষ্টার কামাল হোসেন বলেন, আমি কাউকে টাকা দিয়ে প্রশ্নপত্র বিক্রি করতে বলিনি। বিদ্যালয়ের বাইরে কেউ একজন প্রশ্নপত্র বিক্রি করছেন বলে শুনেছি। টাকা দিয়ে প্রশ্নপত্র বিক্রির নিয়ম নেই, তবে উনি কেন টাকা নিচ্ছেন? সে বিষয়ে উনিই ভালো বলতে পারবেন।
টাকার বিনিময়ে প্রশ্নপত্র বিক্রির বিষয়টি দুঃখজনক উল্লেখ করে, স্থানীয় ইউপি সদস্য বলেন- ঘটনাটি আমরা শুনেছি। এ বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছি ।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।