সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যানকে ফাঁসাতে নিজের ঘরেই আগুণ!

FB_IMG_1605985915550

চকরিয়া উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী থানা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিন বাবুলকে ফাঁসাতে নিজের ঘরেই আগুন দিলো প্রতিপক্ষরা। শুক্রবার রাতে সাহারবিল ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ডের নয়াপাড়া সেকাবউদ্দিনের বাড়িতে ঘটে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা।

এলাকাবাসী জানান, একই এলাকার জনৈক সেকাবউদ্দিনের সাথে মোস্তাক আহমদের পুত্র আরেক সেকাব উদ্দিনের হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে মোস্তাকের পুত্র সেকাব উদ্দিন অপর সেকাবউদ্দিনকে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকাবাসী সেকাব উদ্দিনের বিচার দাবী করে তার বাড়ি ঘেরাও করে। পরে বিষয়টি এলাকায় দু’পক্ষকে নিয়ে চেয়ারম্যান মহসিনের নেতৃত্বে বিচার করার কথা। কিন্তু বিচারের দিন ওই হত্যাচেষ্টাকারি সেকাবউদ্দিন হাজির না হয়ে নানা টালবাহনা শুরু করে। এমনকি সে এলাকার বাইরে অবস্থান করতে থাকে। এরইমধ্যে সেই সেকাবউদ্দিনের বিরুদ্ধে রড, ইট ও সিমেন্ট চুরির অভিযোগ উঠে। তাকে ধরতে শুক্রবার ১টায় চকরিয়া থানা পুলিশের একটি দল তার বাড়ি ঘেরাও করে। কিন্তু সে পুলিশের চোখ ফাকি দিয়ে পালিয়ে যায়। পুলিশ চলে আসলে ওইদিন দিবাগত রাত তিনটায় আগুন লাগে সেকাবউদ্দিনের বাড়িতে। শনিবার দিনে সেকাবউদ্দিন ও তার মা লায়লা বেগম অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলের লোকজনই বাড়িতে আগুন দিয়েছে। তাদের এ অভিযোগের ফলে এলাকায় তোলপাট চলে। কিন্তু সেকাবউদ্দিনের বড়ভাই আবদু রাজ্জাক হাটে হাড়ি ভেঙ্গে দেন। তিনি সাংবাদিকদের শনিবার রাত ১০টার দিকে জানান, চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলকে ফাঁসাতে তার মা লায়লা বেগমই ঘরে আগুন দিয়েছে। আর এ কাজে ইন্ধন যুগিয়েছেন নবী চৌধুরী। এ ব্যাপারে মিথ্যা সংবাদ ও অপপ্রচারের বিরুদ্বে প্রতিবাদ জানিয়েছেন সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুল। তার জনপ্রিয়তায় ঈর্শান্তি হয়ে এবং রাজনৈতিকভাবে হেয় করতে একটিমহল নানাভাবে ষড়যন্ত্র করছেন বলেও দাবী করেন তিনি। সেকাব উদ্দিন স্থানীয় একজন ছিচকে চোর এবং বখাটে যুবক। তার বাড়ি অগ্নিকান্ডের দুই ঘন্টা পূর্বে তার বাড়ি থেকে বিপুল পরিমান রড ও সিমেন্ট উদ্ধার করেছে পুলিশ। চুরির ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে সেকাবের মা লায়লা বেগম নিজেই অগ্নিসংযোগ করার কথা বড় পুত্র আবদুর রাজ্জাক নিজেই জানিয়েছেন।
এদিকে সেকাব উদ্দিনের বড় ভাই আবদুর রাজ্জাক দাবী করেন, বাড়ি পুড়ে যাওয়ায় তার অনেক ক্ষতি হয়েছে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলকে জড়ানো একেবারে মিথ্যা। তার সাথে আমার পারিবারিক সর্ম্পক রয়েছে। চেয়ারম্যান বিপদে আপদে আমাদের সহযোগিতাও করেন। কিন্তু তার ছোট ভাই সেকাব উদ্দিন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তির প্ররোচনায় মাকে দিয়ে বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় বলে জানান তিনি।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।