চকরিয়ার সুরাজপুরে স্বামী-স্ত্রী-ছেলেকে মামলায় আসামী করে দু’দফায় বসতবাড়িতে তান্ডব,আদালতে মামলা

mamla

বিশেষ প্রতিবেদক,চকরিয়া
চকরিয়ায় কথিত হত্যা মামলায় একই পরিবারের স্বামী-স্ত্রী-সন্তানকে আসামী করে দু’দফায় বসতবাড়িতে তান্ডবলীলা চালিয়েছে একটি সংঘবদ্ধ বাহিনী। এ ঘটনায় সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ভিলিজারপাড়া গ্রামের আহমদ নবীর মেয়ে শামিমা আক্তার (১৮) বাদী হয়ে চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি সিআর মাামলা দায়ের করেন। এতে বিবাদী করা হয়েছে; একই এলাকার মৃত ইজ্জত আলীর পুত্র মো: কাজল (রফিকুল ইসলাম কাজল), মো: হোছনের পুত্র দুদু মিয়া, মৃত বদিউল আলম, মৃত রশিদ আহমদের পুত্র মো: মামুন, মতিউর রহমানের পুত্র ইব্রাহিম, শাহ আলমের পুত্র রিদুয়ান, মোক্তার আহমদের পুত্র নবাব মিয়া, উলামিয়া চৌকিদার পিতা অজ্ঞাত, মৃত গফুর বাদশার পুত্র আবদুল আজিজসহ অজ্ঞাত আরো ৮/১০জনকে।
বাদীর আর্জি সূত্রে ও অভিযোগে জানায়, গত ১৪ অক্টোবর’২০ইং সুরাজপুর ভিলিজার পাড়ার প্রায় দুই কিলোমিটার দুরে শাহ আলমের ভবঘুরে পুত্র মো: আইয়ুব নবীকে ষড়যন্ত্র মূলকভাবে কা বা কাহারা হত্যা করে। কিন্তু ওই ঘটনার জের ধরে পূর্বশত্রুতার আক্রোশে থানায় দায়েরকৃত হত্যা মামলায় এলাকার নিরীহ দিনমজুর পঙ্গুত্ব বরণ করা অসহায় পরিবারের স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানকেও আসামী করে দেয়। অসহায় পঙ্গু আহমদ নবী, তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম ও সন্তানকে মামলায় (নং জিআর ৪২৮/২০) ষড়যন্ত্রমূলক আসামী করার পর অসহায় আহমদ নবীর স্ত্রীকে ঘর থেকে পুলিশে দেয়। অন্যান্য আসামীদের সাথে তাকে জেল হাজতে দেয়ার পর সবার ঘরছাড়া হয়ে পড়লে গত ১৪অক্টোবর বিকাল ৪টা ও ১৫ অক্টোবর রাত ৮টায় দু’দফায় তাদের দুইটি বসতবাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। ১ম ঘটনায় ৩০হাত দৈর্ঘ্য ১৬ হাত প্রস্থ টিনের ছাউনী ও মাটির গুদামযুক্ত ঘরটি সম্পূর্ণ ভেঙ্গে ৩টি বক্স খাট,১টি ওয়াল সুকেইচ, ২টি চেষ্টার ড্রয়ার,১টি ডাইনিং সেট, ১টি সোফা সেট, ১টি আলনা, ১টি জাল আলমিরা, বেড-কম্বল,বেডসিট,াকপড় চোপড়, টিভি, ডিস এন্টিনা,গ্যাসের চুলা, সিলিন্ডার, কাঠমেস্ত্রী সরঞ্জাম, ৩ ঘোরা পাম্প মেশিনসহ বিভিন্ন মামলা লুটে অন্তত ৮লক্ষাধিক টাকার ক্ষতিসাধন করে। ২য় ঘটনায় তাদের ৪০হাত লম্বা ও ১৮ হাত প্রস্থ অপর একটি বসতঘরে ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে বাড়িতে রক্ষিত স্টিলের আলমিরা, সোফাসেট, ফ্রিজ, ডাইনিং টেবিল সেট, চেস্টার ড্রয়ার, ড্র্রেসিং টেবিল, ওয়াল সুকেইচ, আলনা, কাপড় চোপড়, গাছপালা লুট করে আরো অন্তত ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন করে। ঘটনার সময় পঙ্গু আহমদ নবীর ডুলাহাজারা কলেজ পড়ুয়া মেয়ে বাদী শামীমা আক্তার (১৮)কে বেধম মারধর ও গলাটিপে হত্যার চেষ্টা করে। তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। ১৬ ও ১৭ অক্টোবর দুইদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর পৃথক দুইটি ঘটনায় গত ২০ অক্টোবর’২০ইং তারিখ চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা (নং সিআর ৮৮২/২০) দায়ের করেন। মামলাটি তদান্তাধীন থাকাবস্থায় গত ২০ ডিসেম্বর’২০ইং প্রসেস দাখিলে ব্যর্থতায় ফৌজদারী কার্যবিধি ২০৪(৩) ধারায় খারিজ হয়ে যায়। পরবর্তীতে ন্যায় বিচারের প্রার্থনা করে গত ২২ ডিসেম্বর বিজ্ঞ আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন। বর্তমানে ভূক্তভোগি ওই পরিবারটি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে জানান।##

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।