চকরিয়ায় মারধরে সংখ্যালঘু বৃদ্ধ নারী আহত শীর্ষক সংবাদ প্রসঙ্গে নুরুল হোছাইনের বক্তব্য

chakaria kakara 26-5-18

গত ২৫ মে দৈনিক সকালের কক্সবাজার পত্রিকায় “চকরিয়ায় মারধরে সংখ্যালঘু বৃদ্ধ নারী আহত ” শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সংবাদটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ভিত্তিহীন কাল্পনিক উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ও হয়রাণী মূলক। সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিলনাই। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে; চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের বটতলী গ্রামে কাকারা মৌজা বিএস খতিয়ান নং ১২৭৭ ও ৭৮১, দাগ নং ৬০২৬, ৫৭০৮, ৫৭০৯, ৫৭১০, ৫৭১২ ও ৫৬৬১, ৫৭১৩ এবং লোটনী মৌজার বিএস খতিয়ান নং ৩৯৬, দাগ নং ১১৮১ এর ২৪৩.০৩ শতক জমির মূল মালিক মৃত নকুল চন্দ্র কুলালের ৩ পুত্র মনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল, সচিন্দ্র চন্দ্র কুলাল ও ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল। উক্ত জমি থেকে বিএস রেকর্ডিং মূলে ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল ৮১.১০ শতক জমির মালিক হন। উক্ত জমি হইতে বিগত ০২/০১/২০১৮ইং তারিখ চকরিয়া সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের ১২৯নং রেজি:কবলা মূলে ৫৫.১৭ শতক জমি ক্রয় করেন কাকারা লোটনী গ্রামের মৃত আবদুল মতলবের পুত্র নুরুল হোছাইন ও মৃত আবুল ফজলের কন্যা শিমুল আক্তার। জমি মালিক সরাসরি সাব রেজিষ্ট্রারের সামনে উপস্থিত হয়ে টাকা গুনে ও বুঝে নিয়ে উপস্থিত স্বাক্ষীদের স্বাক্ষাতে জমি রেজিষ্ট্রি দিলেও পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদে সম্পূর্ণ মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে জমি ক্রেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করা হয়েছে। যার আদৌ কোন সত্যতা পাওয়া যাবেনা। সংবাদে উল্লেখিত বৃদ্ধ সংখ্যালগুর উপর হামলার বিষয়টি সঠিক নয়। মূলত: তাদের হাতে আমরা ক্রেতারা লাঞ্ছিত, অপমানিত ও হামলার শিকার হচ্ছি। কিন্তু উল্লেখিত মৃত নকুল চন্দ্র কুলালের ২য় পুত্র সচিন্দ্র চন্দ্র কুলাল রেকর্ডিয় ওয়ারিশি সূত্রে ৮১.১০ শতক জমির মালিকনার মধ্যে বিএস খতিয়ান নং ১২৭৭ এর মধ্যে ৪৯.৩৩ শতক জমি প্রাপ্ত হলেও ২টি কবলা মূলে বিক্রি করে দিয়েছেন ৬৬ শতক জমি। এরপরও ওই খতিয়ানে তার কোন জমি না থাকা সত্তে¡ও আরো ১৩শতক জমি নিয়ে প্রতারণা ও জালিয়তির আশ্রয় নিয়ে নামজারী জমাভাগ খতিয়ান সৃজন করেন। এনিয়ে জমি ক্রেতা নুরুল হোছাইন ও প্রণব রুদ্র বাদী হয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আদালত,চকরিয়ায় রিভিও মামলা নং ৩১১১/২০১৭-১৮ দায়ের করেন। রিভিও মামলার প্রেক্ষিতে গত ১৬/০৪/২০১৮ আপত্তি বিষয়ে শুনানী হয় এবং শুনানীর বিষয় নিয়ে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার সরে জমিনে পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আগামী ২৮/০৫/২০১৮ ইং তারিখ ধার্য্য করেন। কিন্তু ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য পরিকল্পিতভাবে মিথ্যাচার করে যাচ্ছে। তাই বিজ্ঞ আদালত ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসন এবং এলাকাবাসীকে উক্ত মিথ্যা সংবাদ নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানাচ্ছি এবং সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
প্রতিবাদকারী-
নুরুল হোছাইন, পিতা মৃত আবদুল মতলব, সাং দক্ষিণ লোটনী,
৩নং ওয়ার্ড, কাকারা ইউনিয়ন,চকরিয়া,কক্সবাজার।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।