সর্বশেষ শিরোনাম
চকরিয়া প্রেসক্লাব সভাপতি আবদুল মজিদকে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের গণসংবর্ধনাচকরিয়ায় ৩মাসের অন্ত:স্বত্ত্বা স্ত্রীকে নির্যাতন করে তাড়িয়ে খাইরু নামের এক প্রতারকের ৩য় বিয়েঅন্ধকারাচ্ছন্ন সমাজের আলো ও সফল নেতৃত্বের মডেল ছিলেন জিএম রহিমুল্লাহ‘তারুণ্যের আলো’ সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশজেলা জজ আদালতের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস পালিতচকরিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিতজাতীয় শোক দিবস ও শাহাদাত বার্ষিকী এমপি জাফর আলমের ব্যবস্থাপনায় চকরিয়া-পেকুয়ায় ৩০ পশুর গণভোজচকরিয়া পৌরসভায় মসজিদ ভিত্তির আদর্শ সমাজ ব্যবস্থা কাহারিয়াঘোনা ও করইয়াঘোনা গ্রাম সর্বমহলের নজর কেড়েছেচকরিয়া গ্রামার স্কুলে ৩ কোটি টাকার নতুন ভবন বরাদ্ধ দেয়া হবে ঈদপূর্ণমিলনীতে এমপি জাফরনিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন আর নেই

[post-views]

3c7401lm

দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।

আমজাদ হোসেনের পরিবারের বরাত দিয়ে ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ও চলচ্চিত্র পরিচালক এস এ হক অলিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমজাদ হোসেনের বড় ছেলে গোলাম সোহরাব দোদুল ব্যাংকক থেকে মৃত্যুর বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন। আমরা এখন বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি।

এর আগে, নভেম্বরের মাঝামাঝি ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আমজাদ হোসেন। তখন তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। পরিস্থিতির একটু উন্নতি হলে তাকে নেয়া হয় থাইল্যান্ডে। দুই ছেলে সোহেল আরমান ও সাজ্জাদ হোসেন দোদুলও সেখানে তার সঙ্গে ছিলেন।

১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট জামালপুরে জন্মগ্রহণ করেন আমজাদ হোসেন। পঞ্চাশের দশকে ঢাকায় এসে সাহিত্য ও নাট্যচর্চার সঙ্গে জড়িত হন। প্রথমে তিনি অভিনয় করেন মহিউদ্দিন পরিচালিত ‘তোমার আমার’ সিনেমায়।

আমজাদ হোসেন একসময় চলচ্চিত্র পরিচালক জহির রায়হানের সহকারী হিসেবে কাজ শুরু করেন। ১৯৬৭ সালে তিনি নিজেই চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।

আমজাদ হোসেনের পরিচালনায় নির্মিত জনপ্রিয় ছবিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- ‘বাল্যবন্ধু’, ‘পিতা পুত্র’, ‘এই নিয়ে পৃথিবী’, ‘বাংলার মুখ’, ‘নয়নমণি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘সুন্দরী’, ‘কসাই’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’, ‘দুই পয়সার আলতা’, ‘সখিনার যুদ্ধ’, ‘ভাত দে’, ‘হীরামতি’, ‘প্রাণের মানুষ’, ‘কাল সকালে’, ‘গোলাপী এখন ঢাকায়’ ‘গোলাপী এখন বিলেতে’ ইত্যাদি।

গুণী এই পরিচালক ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ এবং ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্রের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া সরকার তাকে একুশে পদকেও ভূষিত করে।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।