সর্বশেষ শিরোনাম
কক্সবাজার এলও শাখায় ৫ দালাল আটক ও কয়েকজন পলাতকনোটারী মূলে ও কলেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ, নোটারী ও রেজিষ্ট্রি মূলে কামাল-কাসফিয়া’র বিয়েআল-রাজি চক্ষু হাসপাতালচকরিয়া হাফেজ রুহুল আমিন হত্যায় জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবীতে মানববন্ধনবদরখালী ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের তথা কথিত কমিটি প্রত্যাখান করে কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি গঠনের দাবীচকরিয়ার বদরখালী সমবায় কৃষি ও উপনিবেশ সমিতির নবনির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানচকরিয়ার বদরখালীতে এক ইয়াবা ব্যবসায়ীর অত্যাচারে অতিষ্ট এলাকাবাসীচকরিয়ার বরইতলীতে চৌকিদার নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ, ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা এমপি’রচকরিয়ায় মেসার্স আকিফ পর্দা বিতান ও নিউ চকরিয়া আনোয়ার বেডিং ষ্টোর শোরুম উদ্বোধনব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত চকরিয়া পৌরসভার স্টাফ রকিব হাসানকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন আর নেই

[post-views]

3c7401lm

দেশবরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন। তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।

আমজাদ হোসেনের পরিবারের বরাত দিয়ে ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক ও চলচ্চিত্র পরিচালক এস এ হক অলিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আমজাদ হোসেনের বড় ছেলে গোলাম সোহরাব দোদুল ব্যাংকক থেকে মৃত্যুর বিষয়টি আমাকে জানিয়েছেন। আমরা এখন বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি।

এর আগে, নভেম্বরের মাঝামাঝি ব্রেইন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন আমজাদ হোসেন। তখন তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। পরিস্থিতির একটু উন্নতি হলে তাকে নেয়া হয় থাইল্যান্ডে। দুই ছেলে সোহেল আরমান ও সাজ্জাদ হোসেন দোদুলও সেখানে তার সঙ্গে ছিলেন।

১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট জামালপুরে জন্মগ্রহণ করেন আমজাদ হোসেন। পঞ্চাশের দশকে ঢাকায় এসে সাহিত্য ও নাট্যচর্চার সঙ্গে জড়িত হন। প্রথমে তিনি অভিনয় করেন মহিউদ্দিন পরিচালিত ‘তোমার আমার’ সিনেমায়।

আমজাদ হোসেন একসময় চলচ্চিত্র পরিচালক জহির রায়হানের সহকারী হিসেবে কাজ শুরু করেন। ১৯৬৭ সালে তিনি নিজেই চলচ্চিত্র নির্মাণ করেন।

আমজাদ হোসেনের পরিচালনায় নির্মিত জনপ্রিয় ছবিগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- ‘বাল্যবন্ধু’, ‘পিতা পুত্র’, ‘এই নিয়ে পৃথিবী’, ‘বাংলার মুখ’, ‘নয়নমণি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘সুন্দরী’, ‘কসাই’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’, ‘দুই পয়সার আলতা’, ‘সখিনার যুদ্ধ’, ‘ভাত দে’, ‘হীরামতি’, ‘প্রাণের মানুষ’, ‘কাল সকালে’, ‘গোলাপী এখন ঢাকায়’ ‘গোলাপী এখন বিলেতে’ ইত্যাদি।

গুণী এই পরিচালক ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ এবং ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্রের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এছাড়া সরকার তাকে একুশে পদকেও ভূষিত করে।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।