সর্বশেষ শিরোনাম
বদিকে দিয়ে মাদক আর শাজাহান খানকে দিয়ে সড়ক নিয়ন্ত্রণ!চকোরী নার্সারী মালিক ও পরিচালককে পিটিয়ে জখম, ভাংচুর ও টাকা ছিনতাইচকরিয়ায় শ্রমিক সাথে নিয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করলেন আরাকান শ্রমিকের সভাপতি জহিরচকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেলাল উদ্দীন শান্তের মনোনয়ন পত্র দাখিলচকরিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হেলাল মুন্সীর মনোনয়নপত্র দাখিলচকরিয়ায় শাহ আমানত হজ্ব কাফেলার নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধনে দোয়া মাহফিলচকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিলচকরিয়া উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা সাঈদীর মনোনয়নপত্র দাখিলচিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবি আল মাহমুদ‘উপজেলা নির্বাচনে কেউ অংশ নিলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা’

বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজার কেন্দ্রের কর্মচারিদের নিয়ন্ত্রণ করছে কে এই আজিম

[post-views]

51484471_461955027890429_8768769479652933632_n

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাংলাদেশ বেতার কক্সবাজার কেন্দ্রের আঞ্চলিক পরিচালকসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের বিভিন্নভাবে প্রভাবিত করে কেন্দ্রের কর্মচারীদের নিয়ন্ত্রণ করছে এক সময়ের শিবির ক্যাডার বর্তমান জামাত নেতা মোঃ নুরুল আজিম। নুরুল আজিম কেন্দ্রের অনিয়মিত শিল্পী (চুক্তিবদ্ধ) হিসেবে হিসাব শাখায় দায়িত্বরত একজন কর্মচারি। নুরুল আজিম অস্থায়ী কর্মচারি হয়েও নিজেকে বড় পদের কর্মকর্তা হিসেবে পরিচয় দিয়ে বেড়ায়। অফিসেও নিজেকে কর্মকর্তার ভাব দেখিয়ে অন্যান্য কর্মচারিদেরকে নানা প্রকার অত্যাচার ও নির্যাতন করে থাকে। কর্মচারিরা অনেকটা নিরুপায় হয়ে তার যাবতীয় অত্যাচার ও নির্যাতন সহ্য করতে হচ্ছে। সরকারি অফিসে আজিম নানা অনিয়ম ও কর্মচারিদের নির্যাতন করে বরাবরই পার পেয়ে যাচ্ছেন কেউ তার বিরুদ্ধে টু শব্দ পর্যন্ত করতে পারছেন না। গোপন সূত্রে জানা যায় কোন কর্মচারি যদি আজিমের কথামত কাজ না করে আজিম ঐ কর্মরুচারির রুমে তালা ঝুলিয়ে দেয়। নুরুল আজিম ছাত্রজীবন থেকে শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত থেকে বর্তমানে জামাতের রাজনীতির সাথে সরাসরি জড়িত বলে একাধিক কর্মচারি নাম প্রকাশ না করার শর্তে এ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন। সূত্রে জানা যায়, আজিম বেতার কেন্দ্রে চাকরি করে শুধুমাত্র নিজেকে নিরাপদ করার জন্য। সকাল ৯ টায় অফিসে উপস্থিত থেকে ৫ টা পর্যন্ত অফিস করার কথা থাকলেও আজিম নিয়মিত দুপুর ২টায় অফিসে উপস্থিত হয় আবার ৩ টা বাজার পূর্বে অফিস থেকে চলে যায়। সরকারি অফিসের নিয়ম না মেনে মাত্র এক দের ঘন্টার দায়িত্ব পালন করে নিচ্ছে পুরো মাসের বেতন। এসব অনিয়ম নিয়মিত করলেও কর্মকর্তারা কোন ব্যবস্থা নিতে পারছেন না। উল্টো সে সবাইকে ধমক দিয়ে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। কর্মচারিরা জানিয়েছেন আজিম অফিসে নানা প্রকার অনিয়ম করলেও তার বিরুদ্ধে কোন কথা বলতে পারি না, আজিম নিজেকে আইনজীবী পরিচয় দিয়ে মিথ্যা মামলায় আসামি করার হুমকি দেয়। অফিসের যেকোন বিল পাশ করতেই তাকে ৫ থেকে ১০ পার্সেন্ট হারে দিতে হয়। না হয় সে বিল ফেরত দেয়ার হুমকি দেয়। আবার বিলম্ব করে বিল পাশ করিয়ে হয়রাণী করে । টাকা না দিলে কর্মচারিদের সাথে মার মুখি আচরণ করতে দ্বিধাবোধ করে না আজিম। এভাবে সে কর্মচারিদের জিম্মি করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অফিসে রাজস্ব খাতভুক্ত কোন হিসাব সহকারি না থাকায় প্রতিনিয়ত তার নানা হয়রাণি মখবুজে সহ্য করতে হচ্ছে বলে কেন্দ্রের একাধিক কর্মচারি জানিয়েছেন। সূত্রে জানা গেছে, আজিম এক থেকে দের ঘন্টার অফিস করে বাকি সময় সে জামাতের রাজনীতিতে ব্যয় করছে। শুধু তাই নয় বেতার কেন্দ্রে অফিসের কাজের সময় সরকারি কম্পিউটারে সরকারী খরচে নেট ব্যবহার করে প্রতিদিন লাউড স্পিকারে মানবতা বিরুধী কর্মকান্ডে দন্ডিত জামাত নেতা মাওলানা দেলোয়ার হোসেন সাঈদির ওয়াজ শুনেন। এতে অফিসে কর্মরত প্রায় কর্মচারি বিষয়টা নিয়ে অবগত থাকলেও কেউ বাঁধা দেয়ার সাহস পাচ্ছে না। সরকারি অফিসে চাকরি করার কারনে আড়ালে জামাতের রাজনীতি করলে বরাবরেই থেকে যাচ্ছে সন্দেহের বাহিরে । স্থানীয় সূত্রে জানা যায় আজিম কক্সবাজারে সরকার বিরুধী ঘটে যাওয়া প্রত্যেকটি ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে জড়িত কিন্তু সরকারি অফিসের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে রহস্য জনকভাবে পার পেয়ে যাচ্ছে। জামাত সূত্রে জানা যায়, আজিম বতর্মানে শহর জামাতের বাইতুল মাল বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন । এসব বিষয়ে আজিম কে ফোন করলে রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এদিকে আজিমের নানা অনিয়ম ও কর্মচারিদের অত্যাচার ও নানা প্রকার হয়রাণীর বিষয়ে সুষ্ট তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জরুরী হস্তেক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী কর্মচারিবৃন্দ। সে সাথে তারা হয়রাণী থেকে বাচাঁর জন্য জামাত নেতা আজিমকে বাদ দিয়ে কেন্দ্রে একজন রাজস্ব খাতভুক্ত হিসাব সহকারি পদায়ন করার জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।