সর্বশেষ শিরোনাম
বদিকে দিয়ে মাদক আর শাজাহান খানকে দিয়ে সড়ক নিয়ন্ত্রণ!চকোরী নার্সারী মালিক ও পরিচালককে পিটিয়ে জখম, ভাংচুর ও টাকা ছিনতাইচকরিয়ায় শ্রমিক সাথে নিয়ে মনোনয়নপত্র দাখিল করলেন আরাকান শ্রমিকের সভাপতি জহিরচকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে বেলাল উদ্দীন শান্তের মনোনয়ন পত্র দাখিলচকরিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হেলাল মুন্সীর মনোনয়নপত্র দাখিলচকরিয়ায় শাহ আমানত হজ্ব কাফেলার নিবন্ধন কার্যক্রম উদ্বোধনে দোয়া মাহফিলচকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিলচকরিয়া উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা সাঈদীর মনোনয়নপত্র দাখিলচিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবি আল মাহমুদ‘উপজেলা নির্বাচনে কেউ অংশ নিলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা’

কানিজ ফাতেমার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষনা

[post-views]

51958468_2063227307089704_7356593166260109312_n

একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী সীটের ২৬ নম্বর আসনের কানিজ ফাতেমা আহামদ সহ মনোনয়ন দাখিলকৃত ৪৯ জনের মনোনয়নপত্রই বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার ১২ ফেব্রুয়ারি বাছাই শেষে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইসি’র যুগ্ম সচিব আবুল কাসেম এসব মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন। বাছাইয়ে কোনও মনোনয়নপত্র বাতিল হয়নি। বিষয়টি ঢাকা থেকে নিশ্চিত করেছেন-কক্সবাজার শিশু আদালতের পিপি এডভোকেট তাপস রক্ষিত। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি কেউ যদি প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করেন, তাহলে ১৭ ফেব্রুয়ারিই চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে সবাইকে নির্বাচিত ঘোষনা করা হবে। কেউ প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করলে তাদের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করার বিধান রয়েছে। সুতরাং ১৬ ফেব্রুয়ারি অফিসিয়ালি চুড়ান্ত নির্বাচিত ঘোষনা নাহওয়া পর্যন্ত কক্সবাজারের কানিজ ফাতেমা আহামদ সহ ৪৯ জনকে অপেক্ষা করতে হবে। নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ছিল ১১ ফেব্রুয়ারি। ১২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টার দিকে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৬ ফেব্রুয়ারি। ভোটগ্রহণ ৪ মার্চ। তবে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ভোটগ্রহণ করা হবে না। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ৩০০ আসনের মধ্যে ২৫৮টি, জাতীয় পার্টি (জাপা) ২২টি, বিকল্পধারা দু’টি, ওয়ার্কার্স পার্টি তিনটি, জাসদ (ইনু) দু’টি, জাতীয় পার্টি (জেপি) একটি ও তরিকত ফেডারেশন একটি আসন পেয়েছে। মহাজোট মোট আসন পেয়েছে ২৮৯টি। অন্যদিকে, বিএনপি ছয়টি ও গণফোরাম দু’টি আসন পেয়েছে। এই হিসাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মোট ৮টি আসন। আর স্বতন্ত্র থেকে নির্বাচিত হয়েছেন তিন জন প্রার্থী। দল ও জোটের সংসদ সদস্যের সংখ্যার অনুপাতে সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগ ৪৩টি আসন, ওয়ার্কার্স পার্টি একটি, জাতীয় পার্টি চারটি ও স্বতন্ত্র তিন প্রার্থীর জোট একটি সংরক্ষিত নারী আসন পেয়েছে। বিএনপি জোট শপথ না নেওয়ায় তাদের অংশের একটি নারী আসন শূন্য থাকছে।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।