চকরিয়া পৌর এলাকায় জমি জবর দখলে দু’দফা হামলায় সাবেক কাউন্সিলর কুতুবসহ আহত ৭

[post-views]

kutub, chakaria 10-3-19

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া পৌর এলাকায় বাণিজ্যিক মার্কেটের জমি জবর দখল-বেদখল নিয়ে দু’দফায় সন্ত্রাসী হামলায় সাবেক পৌর কাউন্সিলর কুতুবউদ্দিনসহ ৭জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৩জনকে জেলা সদর হাসপাতাল কক্সবাজারে রেফার করা হয়েছে। রবিবার (১০মার্চ) সকাল ৭.১৫টায় এবং সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পৌরসভার চিরিংগা থানা রাস্তার মাথার উত্তর পার্শ্বে ও পালাকাটা রোডের নামনী এলাকায় পৃথক এ ঘটনা ঘটেছে।
অভিযোগে জানাগেছে, চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের মাস্টার পাড়া এলাকার মৃত ফজল করিমের পুত্র মো: ইসমাইল ও মরহুম মাস্টার নুরুল ইসলামের পুত্র সাবেক কাউন্সিলর কুতুব উদ্দিন গংয়ের মালিকানাধীন চিরিংগা মৌজার আরএস ১২৩নং খতিয়ানের ২২৫/৬৩৬ এর বিএস খতিয়ান নং ২৩, দাগ নং ৪২২/৮২৭ এর ৫শতক জমি রয়েছে। জমিতে বর্তমানে ৫তলা ফাউন্ডেশনের ৩তলা বিশিষ্ট দুই রুম পাকা দোকান ঘরের মধ্যে ১ম তলায় ২টি দোকান ঘর ও আন্ডার গ্রাউন্ডের ২টি রুম নজরুল এন্টার প্রাইজ ও জিবি অটো মোবাইলস রয়েছে। তা পরিচালনা করছেন জনৈক জিয়াবুল কাদের ও নজরুল ইসলাম। উক্ত জমির সৃষ্ট বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষ গনের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ যুগ্ম জেলা জজ ২য় আদালত,কক্সবাজারে অপর মামলা নং ৫০/২০০২ ও মিচ মামলা নং ৪৩/২০১০ এ আদালতের ডিক্রি রয়েছে ইসলাম ও কুতুব উদ্দিন গংয়ের পক্ষে। এছাড়াও অপর একটি মামলা (নং ৩৫৩/২০১৪) বিচারাধীন রয়েছে। কিন্তু তা অমান্য করে ২০/২৫জনের একদল ভাড়াটিয়া সশস্ত্র সন্ত্রাসী নিয়ে ১০মার্চ সকাল ৭টা ১৫ মিনিটের দিকে অতর্কিতভাবে জবর দখলের চেষ্টা চালায়। এসময় হামলায় আহত হন মৃত ফজল করিমের পুত্র আনিসুর রহমান (৪৫), তাকে উদ্ধারে জেঠাতো ভাই বাহাদুর আলম (৪৫) এগিয়ে আসলে তাকেও কুপিয়ে ও পিঠিয়ে জখম করে। পরে প্রতিবন্ধী ভাতিজা মিজানুর রহমান(৩০) ও জেঠাতো ভাই গিয়াস উদ্দিন (৪৫) এগিয়ে গেলে তাকেও প্রহার করে। তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করেন। ঘটনার বিষয়ে চকরিয়া-পেকুয়া আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলমকে পালাকাটাস্থ বাসভবনে বিষয়টি জানাতে গেলে ফেরার পথে একইদিন সকাল সাড়ে ৯টার দিকে পালাকাটা নামনীর স্থানে উল্লেখিত ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা অতর্কিত অবস্থায় ফের হামলা চালায়। হামলায় সাবেক পৌর কাউন্সিলর কুতুব উদ্দিন (৪০), তার সাথে থাকা সাইফুল (৩৫) ও মো: খোকন (৪০)কে গতরোধ করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। বর্তমানে তাদের অবস্থা আশংঙ্খাজনক রয়েছে। দুই দফা ঘটনার সময় লুট করে নিয়ে গেছে নগদ টাকা, ব্যবহৃত মোবাইল সেট ও মালামাল। এমনকি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও তালাবদ্ধ করে দিয়েছে। এঘটনায় ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষে থানায় ১৫জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৭/৮জন দেখিয়ে এজাহার দায়ের করা হয়েছে।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।