সর্বশেষ শিরোনাম
১কেজি ধান বিক্রি করে কৃষক পায় ১২/১৩ টাকা!চকরিয়ায় ফেসবুকে সম্মানহানির স্ট্যাটাসসংবাদ সম্মেলনে ভূক্তভোগীর প্রতিকার দাবীচকরিয়ায় লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়েবিদ্যুত কার্যালয়ে মুসল্লীদের হামলাচকরিয়া ছাত্র কল্যাণ ফোরামের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিতচট্টগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতিরইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিতচকরিয়া মডেল ফারিয়া’র ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্নখুটাখালী ইউনিয়ন জামায়াতের ইফতার মাহফিল চকরিয়ার চিরিংগা বাস ষ্টেশন মসজিদে দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে আয়-ব্যয়ের হিসাব নেই,মুসল্লীদের ক্ষোভদায়িত্ব পালনে চকরিয়ার সকল মসজিদ-মাদরাসারউন্নয়ন ও আলেম সমাজের মর্যাদা রক্ষায় কাজ করবো- সাঈদীচকরিয়ায় মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ফারুক আহমদ চৌধুরীর ৫ম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

চকরিয়ার কাকারায় রেজিষ্ট্রিকৃত জমি নিয়ে জালিয়তি

[post-views]

chakaria kakara 13--5-19

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের বটতলী গ্রামে কাকারা মৌজা বিএস খতিয়ান নং ১২৭৭ ও ৭৮১, দাগ নং ৬০২৬, ৫৭০৮, ৫৭০৯, ৫৭১০, ৫৭১২ ও ৫৬৬১, ৫৭১৩ এবং লোটনী মৌজার বিএস খতিয়ান নং ৩৯৬, দাগ নং ১১৮১ এর ২৪৩.০৩ শতক জমির মূল মালিক মৃত নকুল চন্দ্র কুলালের ৩ পুত্র মনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল, সচিন্দ্র চন্দ্র কুলাল ও ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল। উক্ত জমি থেকে বিএস রেকর্ডিং মূলে ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল ৮১.১০ শতক জমির মালিক হন। উক্ত জমি হইতে বিগত ২জানুয়ারী’১৮ইং চকরিয়া সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের ১২৯নং রেজি:কবলা মূলে ৫৫.১৭ শতক জমি ক্রয় করেন কাকারা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড দক্ষিণ লোটনী গ্রামের মৃত আবদুল মতলবের পুত্র নুরুল হোছাইন ও মৃত আবুল ফজলের কন্যা শিমুল আক্তার। জমি মালিক সরাসরি সাব রেজিষ্ট্রারের সামনে উপস্থিত হয়ে টাকা গুনে ও বুঝে নিয়ে উপস্থিত স্বাক্ষীদের স্বাক্ষাতে জমি রেজিষ্ট্রি দিলেও জমি ক্রেতাদের বিরুদ্ধে নানাভাবে মিথ্যাচার করছেন একটি কুচক্রি মহল। প্রতিনিয়তই সংখ্যালঘু পরিচয়ে ক্রেতাদের লাঞ্ছিত, অপমানিত ও হামলা এবং বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন নুরুল হোছাইন।
অভিযোগে উঠেছে; উল্লেখিত মৃত নকুল চন্দ্র কুলালের ২য় পুত্র সচিন্দ্র চন্দ্র কুলাল রেকর্ডিয় ওয়ারিশি সূত্রে ৮১.১০ শতক জমির মালিকনার মধ্যে বিএস খতিয়ান নং ১২৭৭ এর মধ্যে ৪৯.৩৩ শতক জমি প্রাপ্ত হলেও ২টি কবলা মূলে বিক্রি করে দিয়েছেন ৬৬ শতক জমি। এরপরও ওই খতিয়ানে তার কোন জমি না থাকা সত্ত্বেও আরো ১৩শতক জমি নিয়ে প্রতারণা ও জালিয়তির আশ্রয় নিয়ে নামজারী জমাভাগ খতিয়ান সৃজন করেছেন। এনিয়ে জমি ক্রেতা নুরুল হোছাইন ও প্রণব রুদ্র বাদী হয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আদালত, চকরিয়ায় রিভিও মামলা নং ২৯৪/২০১৭-১৮ দায়ের করেন। রিভিও মামলার প্রেক্ষিতে আপত্তি বিষয়ে একাধিকবার শুনানী হয়েছে এবং শুনানীর বিষয় নিয়ে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার সরে জমিনে পরিদর্শন করে উক্ত ১৩শতক জমি মূল খতিয়ানে অন্তভূক্ত করতে প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন।
ভূক্তভোগী নুরুল হোছাইন অভিযোগ করেন, ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল স্বপরিবারে বিদেশে (ভারতে) থাকাবস্থায় প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে কথিত ফনিন্দ্র চন্দ্র কুলাল প্রকাশ পনিন্দ্র লাল কুলাল সাজিয়ে কাকারা ইউনিয়ন পরিষদের নামে বিগত ২৯নভেম্বর’২০০৬ইং চকরিয়া সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে ৪৬১৬নং কবলা মূলে ২৬শতক জমি নিয়ে একটি ফেরবী দলিল সৃজন করে। মূলত: উল্লেখিত অভিযুক্ত সচিন্দ্র চন্দ্র কুলাল গং নিস্বত্ত্ববান হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদকে ব্যবহার করে আমার (নুরুল হোছাইন) ক্রয়কৃত ও ভোগ দখলীয় জমি জবর দখলে নিতে এসব প্রতারণার আশ্রয় গ্রহণ করেছে। তাই বিজ্ঞ আদালতসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসন ও এলাকাবাসীর কাছে সহযোগিতা কামনা করেন

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।