সর্বশেষ শিরোনাম
১কেজি ধান বিক্রি করে কৃষক পায় ১২/১৩ টাকা!চকরিয়ায় ফেসবুকে সম্মানহানির স্ট্যাটাসসংবাদ সম্মেলনে ভূক্তভোগীর প্রতিকার দাবীচকরিয়ায় লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়েবিদ্যুত কার্যালয়ে মুসল্লীদের হামলাচকরিয়া ছাত্র কল্যাণ ফোরামের ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিতচট্টগ্রামস্থ চকরিয়া সমিতিরইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিতচকরিয়া মডেল ফারিয়া’র ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্নখুটাখালী ইউনিয়ন জামায়াতের ইফতার মাহফিল চকরিয়ার চিরিংগা বাস ষ্টেশন মসজিদে দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে আয়-ব্যয়ের হিসাব নেই,মুসল্লীদের ক্ষোভদায়িত্ব পালনে চকরিয়ার সকল মসজিদ-মাদরাসারউন্নয়ন ও আলেম সমাজের মর্যাদা রক্ষায় কাজ করবো- সাঈদীচকরিয়ায় মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ফারুক আহমদ চৌধুরীর ৫ম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

কোনাখালীতে মসজিদের চলাচল পথের মাটি কেটে লুটে বাধা দেয়ায় হামলা, আহত-৪

[post-views]

CHAKARIA KONAKHALI PIC 15-5-19

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়ায় মসজিদের চলাচল পথের মাটি কেটে লুটে বাধা দেওয়ায় হামলায় মসজিদ কমিটির সভাপতি ও তার পিতাসহ ৪জন আহত হয়েছে। উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মধ্যম কোনাখালী শহরআলী পাড়া জামে মসজিদ এলাকায় ঘটেছে এ ঘটনা। এনিয়ে মুসল্লীসহ স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। এঘটনায় হামলার শিকার মসজিদ কমিটির সভাপতি ও আলহাজ্ব আমির হোসেনের পুত্র নুরুল আলম (৩৪) বাদী হয়ে থানায় ১৫মে’১৯ইং সন্ধ্যায় লিখিত এজাহার দিয়েছেন। এতে অভিযুক্ত করা হয়েছে; হামলাকারী একই এলাকার মৃত মোজাফ্ফর আহমদের পুত্র মো: ছৈয়দ নুর, সরওয়ার আলম, আবুল কাশেম, মো: ছৈয়দ নুরের পুত্র রমিজ উদ্দিন, স্ত্রী সবে মেহেরাজ খাতুন, মৃত আবদুল করিমের পুত্র মো: সিরাজ, আবদুল মালেকের পুত্র রেজাউল করিম, মো: বাবুলের স্ত্রী মিনা আক্তার, সরওয়ার আলমের স্ত্রী বুলবুল আক্তারসহ অজ্ঞাত আরো ৪/৫জনকে।
বাদীর দায়েরকৃত এজাহারে জানান, স্থানীয় মধ্যম কোনাখালী শহর আলী পাড়া জামে মসজিদের নির্মাণ ও সংস্কার কাজের জন্য ইট,বালি,কংকর, সীমেন্টসহ বিভিন্ন সরঞ্জামাদী মজুদ করেছেন। কিন্তু মসজিদের কাজে ব্যাঘাত ঘটাতে একই এলাকার উল্লেখিত অভিযুক্তরা গত ১১মে দুপুর ১২টায় মসজিদের চলাচল পথের মাটি কেটে গাড়ী ভর্তি করে অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছেন। এতে বাধা দেওয়া ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্তরা হাতে দা, কিরিছ, লোহার রড, হাতুড়ীসহ ধারালো অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। হামলাকালে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরুল আলম (৩৪), তার পিতা আমির হোছন (৫৫), বোন শাহেনা আক্তার (১৮) ও আহমদ হোছনের ছেলে জয়নাল আবেদীন (৩০)কে কুপিয়ে জখম করে। হামলাকালে শাহেনা বেগমের ১ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহতদের মধ্যে মসজিদ কমিটির সভাপতির পিতা আমির হোছনের মাথায় আঘাত গুরুতর হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসায় রেফার করা হয়েছে। তবে স্থানীয় মুসল্লীরা এসব ঘটনাতেও কোনাখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদারের ইন্ধন রয়েছে বলে জানান।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান বলেন, লিখিত এজাহারটি পাওয়ার পর তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।