বমুবিলছড়িতে ঈদ বস্ত্র বিতরণে উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী

[post-views]

Chakaria Picture 31-05-2019 (1)

আগামীতে চকরিয়ায় সকল ভুমিহীন পরিবারের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার নতুন ঘর দেয়া হবে বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে গরীব মানুষের মাঝে ঈদ বস্ত্র বিতরণে উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী

চকরিয়া অফিস:
চকরিয়া উপজেলার ছিটমহল খ্যাত পাহাড়ি জনপদ বমুবিলছড়ি ইউনিয়নে অভাবগ্রস্থ গরীব মানুষের কাছে ঈদের নতুন কাপড় বিতরণ করেছেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। গতকাল শুক্রবার স্থানীয় বমুবিলছড়ি বাঁশ সমবায় সমিতি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও সহযোগি সংগঠনের আয়োজনে ইফতার মাহফিল পরবর্তী আলোচনা সভা শেষে স্থানীয় আড়াই শতাধিক গরীব ও দু:স্থ পরিবারের নারী-পুরুষের হাতে ঈদবস্ত্র তুলে দেন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী।
বমুবিলছড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ফরিদ আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন লামা উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মোস্তাফা জামাল, লামা পৌরসভার মেয়র জহিরুল ইসলাম, চকরিয়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক বাবলা দেবনাথ, ইউনিয়ন আওয়ামীলগের সহ-সভাপত কফিল উদ্দিন, বমুবিলছড়ি বাঁশ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জামাল উদ্দিন, বৃহত্তর চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আমিরুল কবির, স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু ছালাম, ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের অর্থসম্পাদক আবদুস ছবুর, শ্রমিক নেতা রফিক, ব্যবসায়ী কাউছার উদ্দিন, আবদুর রহিম, মো.ইকবাল, নুর মোহাম্মদ, জাফর আলম সুনা মিয়া, সমাজ সেবক আনোয়ার হোসেন, মো.ইব্রাহিম, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি নাজমুল হুদা, জাতীয় পাটির ইউনিয়ন সভাপতি নাজেম উদ্দিন প্রমুখ। ইফতার মাহফিলে মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা মোহাম্মদ ছালাম।
অনুষ্ঠানে চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী বলেছেন, চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার গরীব পরিবারের লোকজন আমাকে স্বরণকালের ভোট দিয়েছেন। নির্বাচনের সময় অনেক গরীব মানুষ ভালোবাসা দেখিয়ে আমাকে টাকা দিয়েছেন। নির্বাচনে জয়ী হতে তাঁরা বিনা টাকায় স্বেচ্ছাসেবকের ভুমিকা পালন করেছেন। আমি গরীব এসব মানুষের ঋণ শোধ করতে পারবোনা।
তিনি বলেন, উপজেলা পরিষদে অর্পিত দায়িত্ব পালনে আমি চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার গরীব ও অভাবগ্রস্থ মানুষের কল্যাণে নিজেকে নিয়োজিত করবো। অতীতের মতো সবসময় আমার দরজা এসব দু:স্থ মানুষের জন্য খোলা থাকবে। আমার কাছে ধনী গরীব কোন বৈষম্য হবেনা। অতীতেও ছিলনা, আগামীতেও থাকবেনা।
উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী বলেন, সম্মানিত চকরিয়াবাসি আমাকে একটু সময় দিন, আমি চকরিয়া উপজেলার প্রতিটি জনপদে গরীব ও দু:স্থ মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করবো ইনশাল্লাহ। সরকারি সব ধরণের সহায়তা গরীবদের মাঝে সমানহারে বন্টন করা হবে। আগামীতে চকরিয়া উপজেলার প্রতিটি জনপদে ভুমিহীন গরীব পরিবারের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ উপহার নতুন ঘর দেয়া হবে। সেইলক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষথেকে সবধরণের প্রস্তুতি চলছে।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।