‘ঢাবির চকোরী’ কমিটি থেকে সভাপতি-সম্পাদককে অব্যাহতি, আহবায়ক কমিটি ঘোষণা

received_1435102913306754

 ‘ঢাবির চকোরী’ পরিবারের সকল সদস্যের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, গত ৩০-০৮-২০১৯ তারিখ বিকেল ৫.২০টায় সংগঠিত ‘‘সংগঠন পরিপন্থী কাজ ও সংগঠনের জেষ্ঠ্য সদস্যের সাথে অসদাচরণ এবং শারিরীকভাবে লাঞ্ছনার অভিযোগ’’ সাপেক্ষে তদন্ত কমিটির
যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে ঘটনার সত্যতা সন্দেহাতীতভাবে প্রামাণিত হওয়ায় এবং সেই সাথে তদন্ত কমিটির সদস্যের সাথেও ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করায় ‘ঢাবির চকোরী’ পরিবারের ‘‘উপদেষ্টা পরিষদ, সাবেক সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ’’ এর সম্মিলিত সিদ্ধান্তক্রমে ঘটনায় অভিযুক্ত..
১. রিয়াজ উদ্দীন সোহেল
২. আরফাতুল ইসলাম আরাফাত’কে
আজ ৩রা সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখ থেকে ‘ঢাবির চকোরী’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ এর যাবতীয় সাংগঠনিক কর্মকান্ড থেকে স্থায়ীভাবে অব্যাহতি দেওয়া হল।
সেইসাথে দু’জনকে তাদের এহেন কর্মকান্ডের জন্য ভুক্তভোগী ও সম্মানিত উপদেষ্টা পরিষদ বরাবর আগামী তিন(৩) দিনের মধ্যে লিখিতভাবে ক্ষমা চাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। অন্যথায় ‘ঢাবির চকোরী’ পরিবার উক্ত দু’জনকে আজীবন বয়কট করবে।
আরো উল্লেখ্য যে, সংগঠনের অন্তবর্তী কার্যক্রম পরিচালনা এবং যাবতীয় অডিটের জন্য নিম্নোক্ত এডহক কমিটি গঠন করা হলোঃ
#আহবায়কঃ সাজ্জাদ হোসেন রিয়াদ (শিশির)
#যুগ্ম_আহবায়কঃ আকিব হোসেন চোধুরী
#সদস্য_সচিবঃ মোহাম্মদ উল্লাহ রিয়াদ
উক্ত এডহক কমিটির সাথে আলোচনা করে উপদেষ্টা পরিষদ আগামী ২১ কার্যদিবসের মধ্যে পরবর্তী কমিটি নির্বাচনের মাধ্যমে পরবর্তী কমিটির কাছে দায়িত্ব প্রদান করবে।

তদন্ত প্রতিবেদনের প্রমাণসমূহের মধ্যে একটি প্রমাণ সবার সামনে উপস্থাপন করা হলো কারণ ইতোমধ্যেই অব্যাহতিপ্রাপ্ত সদস্য রিয়াজ উদ্দীন সোহেল উক্ত ঘটনা সম্পর্কে সবাইকে ফেইবুক গ্রুপে ভুল তথ্য প্রদান করেছেন। সুতরাং সঠিক ঘটনাটি সবার জানা উচিত।

বিঃদ্রঃ এটি কাউকে ব্যক্তিগত আঘাত করা বা হেয় করার জন্য নয় বরং সত্য উপস্থাপনের নিমিত্তে পেশ করা হলো। এবং এটাও উদ্দেশ্য যে, যে কেউ সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ড ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের ফলে ঢাবির চকোরী’র সাংগঠনিক সকল প্রকার কর্মকান্ড পরিচালনার বৈধতা হারাতে পারেন।

, বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।