চকরিয়ায় পরীক্ষার খাতা জালিয়তির আলোচিত সেই লিটনকে গোপনে আওয়ামীলীগের সভাপতি ঘোষনার চেষ্টা!

LITAN, CHAKARIA 6-11-16

জহিরুল আলম সাগর/মিফতাব উদ্দিন চৌধুরী

চকরিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে মেধাবী শিক্ষার্থী তাওরিন তাসফিয়া তাসফির এসএসসি পরীক্ষার খাতা জালিয়াতির নায়ক সেই অসাধু শিক্ষক কাইছার লিটনকে এবার গোপনে ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি করার পায়ঁতারা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
গত ২২ সেপ্টেম্বর মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন চলাকালে উত্তর ভেওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে জাল ভোট প্রয়োগের ঘটনার জন্ম দেন সভাপতি প্রার্থী সেই কাইছার লিটন। এ ঘটনার পর পরবর্তীতে সম্মেলনে উপস্থিত মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের পরামর্শে কাউন্সিল কার্যক্রম স্থগিত ঘোষনা করা হয়।
অভিযোগ উঠেছে, সম্মেলনের প্রায় দেড়মাস সময় অতিবাহিত হলেও নতুন করে সম্মেলনের তারিখ ঘোষনা না করে কৌশলে মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা এবং পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়ন কমিটির কতিপয় নেতারা আর্থিক লেনদেনের বিনিময়ে সম্প্রতি সময়ে কাইছার লিটনকে ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি পদে নির্বাচিত করার মিশনে নেমেছে। ইতোমধ্যে এই ধরণের একটি গুঞ্জন স্থানীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে সাধারণ নেতাকর্মীদের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, গত ২২ সেপ্টেম্বর ভন্ডুল হওয়া পুর্ববড় ভেওলা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের মোট কাউন্সিলর ছিলেন ১৮৩জন। সভাপতি ও সম্পাদক পদে প্রার্থী ছিলেন মোট পাঁচজন। তারমধ্যে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি নাছির উদ্দিন, কাইছার লিটন, রবি সুশীল ও সাধারণ সম্পাদক পদে জয়নাল আবেদিন এবং মোহাম্মদ সোহেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।
সম্মেলন উপস্থিত নেতাকর্মীরা জানান, প্রার্থীদের আবেদন মতে আমরা কাউন্সিলের মাধ্যমে সভাপতি সম্পাদক নির্বাচনে উদ্যোগ নিই। এরই অংশহিসেবে প্রথম অধিবেশন শেষে কাউন্সিলরদের ভোট গ্রহন শুরু করা হয়। ভোট গ্রহন চলাকালে সভাপতি প্রার্থী কাইছার লিটন ভোট দেয়ার অজুহাতে কেন্দ্রের ভেতরে ঢুকে কৌশলে একসঙ্গে একাধিক পরিমাণ ভোট বাক্সে ঢুকিয়ে দেয়ার চেষ্ঠা করেন।
এসময় অন্য প্রার্থীদের এজেন্টরা চ্যালেঞ্জ করলে ঘটনাটি জানতে পারি। পরবর্তীতে সম্মেলনে উপস্থিত মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের পরামর্শে কাউন্সিল কার্যক্রম স্থগিত ঘোষনা করা হয়।
অবশ্য ওইদিনের কাউন্সিল অধিবেশনের শুরুতে মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদকের কাছে পোলিং এজেন্ট হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হারুন সরওয়ার বাদল, জসিম উদ্দিন ও আবু মোর্শেদ নামের তিনজনকে উল্লেখিত দায়িত্ব থেকে বিরত রাখতে লিখিত আবেদন করেন সভাপতি নাছির উদ্দিন।
তিনি আবেদনে দাবি করেন, অভিযুক্ত এই তিনজন অপর সভাপতি প্রার্থী কাইছার লিটনের নিকট আত্মীয়। এদের একজন চাচাতো ভাই, একজন মামা ও অপরজন লিটনের ভগ্নিপতি।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।