চকরিয়ায় ইবাদতখানা, মাজার ও কবরস্থানের জমি রক্ষা করতে গিয়ে পিতার উপর সন্তানদের হামলা

চকরিয়ায় ইবাদতখানা, মাজার ও কবরস্থানের নামে দানকৃত জমি রক্ষা করতে গিয়ে পিতার উপর হামলা চালিয়েছে মেয়ের জামাইসহ সন্তানরা। এনিয়ে হতভাগা পিতা আবদু রহমান (৭০) বাদী হয়ে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক ও চকরিয়া পৌরসভার মেয়র বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে চকরিয়া পৌরসভা ৫নং ওয়ার্ডের করাইয়াঘোনা গ্রামে। তিনি ওই এলাকার মরহুম আলী আকবরের পুত্র। অভিযুক্তরা হলেন বাদী আবদু রহিমের পুত্র এনামুল হক ও আজিজুল হক এবং মেয়ের জামাই বেলাল উদ্দিন।
অভিযোগে বাদী আবদু রহিম জানান, তিনি চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির হযরত গাউছুল আজম রওজা মুশকিলে খুশী হযরত মৌলানা আল-মাইজ ভান্ডারী শরীফের পরিচালক হিসেবে চকরিয়া পৌরসভার করাইয়াঘোনা গ্রামে ইবাদত খানা, মাজার ও কবরস্থানের জন্য বিগত ১৯৯৯ সনের ২৮ জুলাই তার ব্যক্তিগত ১০শতক জমি দান করেন। যার কবলা দলিল নং ৩১৫৩। এনিয়ে চকরিয়া উপজেলা ভূমি অফিসে জমাভাগ মামলা নং ২২৫/২০১৪-১৫ মূলে বিএস খতিয়ান নং ৬৯৭সৃজিত হয়। কিন্তুইবাদত খানা, মাজার ও কবরস্থানের ওই জমি জবর দখলের জন্য আমার ছেলে এনাম ও আজিজ, মেয়ের জামাই বেলাল দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে হুমকি ধমকিসহ অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। এনিয়ে চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে এমআর মামলা নং ১২৯/১৪, (সি)এমআর নং ২৬৩/১০ নং মামলা করেন। সর্বশেষ গত ৪জুন’১৯ইং সহ পরবর্তীতে সন্তানরা একাধিকবার হামলা চালায় পিতার উপর। হামলাকালে বাদী আবদুর রহিমের পিতা-মাতার ৩টি কবর, দোকানঘর, কলঘর ও মিশিন ভাংচুর করে। দোকান ভাংচুর ও লুটপাটে অন্তত ২লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে। ভূক্তভোগী বাদী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট মন্ত্রী, স্বরাষ্ট সচিব ও পুলিশের আইজিপিকে অভিযোগের অনুলিপি দিয়েছেন। তিনি অভিযোগ দেয়ায় বর্তমানে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে বলে জানান।

বিভাগের সংবাদ।

নিউজ ডেস্ক, চকরিয়া২৪।